• samity@bcs.org.bd
  • |
  • 880-2-9671342, 880-2-9671350
  • Date: 10th September - 10th September 2017
  • |
  • Time: 5:14 PM
  • |
  • Venue: Taiwan

তাইওয়ানের তাইপে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে (টিআইসিসি) চলমান ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজির (ডাব্লিউসিআইটি) ২১তম সম্মেলনে আগামীকাল (১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭) সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে উইটসা এক্সিলেন্স ও ই-এশিয়া অ্যাওয়ার্ডস প্রদান করা হবে। বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) নির্বাহী পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব স্বপন কুমার সরকার, বাংলাদেশ ডাক বিভাগের মহাপরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার মন্ডল, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাইফুল ইুসলাম, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি’র (বিসিএস) সভাপতি আলী আশফাক প্রমুখসহ সরকারি-বেসরকারি ৫২ সদস্যের প্রতিনিধিদল সম্মেলন।

 

তাইপের সম্মেলনস্থল থেকে বিসিসি নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার সরকার বলেন, “ডব্লিউসিআইটি-কে  তথ্যপ্রযুক্তির  অলিম্পিক হিসাবে বিবেচনা করা হয়। এবারের সম্মেলনে আমাদের অংশগ্রহণের মূল কারণ হচ্ছে ২০২১ সালে বাংলাদেশ এই সম্মেলনের আয়োজক দেশ হবে। ফলে এখনকার অভিজ্ঞতা নিয়ে আমরা আমাদের সম্মেলন আরো কতটা সুন্দর ও সাবলীলভাবে আয়োজন করা যায় সে চেষ্টা করবো। এখনকার প্রদর্শনীতে বিভিন্ন দেশ তাদের যেসব প্রযুক্তি প্রদর্শন করছে, সেসবের কিছু-কিছু প্রযুক্তি থেকে কিছুটা পিছিয়ে থাকতে পারি বটে, কিন্তু লক্ষ করলে দেখা যাবে আমাদের দেশ কিছু তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক উদ্যোগ গত কয়েক বছর থেকে ডাব্লিউসিআইটি সম্মেলনে পুরস্কৃত হয়ে আসছে। আমাদের উদ্যোগগুলো বিশ্বমানের হওয়ায় অন্যান্য দেশগুলোর সাথে প্রতিযোগিতা করে আমরা বিজয়ী হচ্ছি। ২০২১ সালের আয়োজন সফল করতে আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো এবং আশা করছি আমাদের আয়োজন সফল হবে”।

 

এর আগে গতকাল সম্মেলন স্থলে উইটসার বোর্ড অব ডিরেক্টরস এর সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির প্রতিনিধিত্ব করেন বিসিএস এর সাবেক সভাপতি ও উইটসা’র পরিচালক মো. সবুর খান। এ সময় তিনি উইটসা-অ্যাসোসিও কোলাবোরেশন, ডব্লিউসিআইটি ২০২২ বিড, উইটসা বিটুবি পোর্টাল, উইটসার এমার্জিং ডিজিটাল সলিউশন প্রোগ্রাম ২০১৭, উইটসা ফেলোশিপ প্রোগ্রাম, আইটিসিএ, উইটসা অ্যাওয়ার্ড ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করেন। উইটাস’র প্রতিনিধিদলের সদস্য হিসেবে তিনি তাইওয়ানের ভাইস প্রেসিডেন্ট চেন চেইন-জেন (Chen Chien-jen) এর সাথেও সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

তাছাড়া বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি আলী আশফাক এশিয়া প্যাসেফিক কাউন্সিল ফর ট্রেড ফ্যাসিলেটেশন এন্ড ইলেকট্রনিক বিজনেস (AFACT) এর প্ল্যানারী মিটিংএ অংশগ্রহণ করেন। সেখানে বাংলাদেশের হেড অব ডেলিগেশন হিসেবে আজ তিনি ‘ই-ট্রেড ফিসিলিটেশন ইন দ্য ডব্লিউটিও অ্যান্ড দ্য ইমপ্যাক্ট অন ডিজিটাল ট্রান্সফরেমশেন’, ‘আপডেট অন ই-ফাইটো সার্টিফিকেট অ্যান্ড আসিয়ান সার্টিফিকেট’, ‘ইলেক্ট্রনিক ওয়ার্ল্ড ট্রেড প্ল্যাটফরম’ এবং ‘ইকম ওয়ার্কিং  গ্রুপ  আপডেট’ বিষয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা ও মতবিনিময় সভাগুলোতে  অংশগ্রহণ করেন। 

 

সম্মেলনে আজ অ্যাসোসিও বাংলাদেশসহ এশিয়া প্যাসেফিক অঞ্চলের ১২টি দেশের তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে একটি গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে। গবেষণা প্রতিবেদনে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন বিষয়ে বলা হয় ২০২০ সালের মধ্যে দেশে শতভাগ ইন্টারনেট ব্রডব্যান্ড কাভারেজ সম্পন্নকরণ, ২০২১ সালের মধ্যে প্রাইমারী ও সেকেন্ডারী স্কুলে আইসিটি কোর্স বাধ্যতামূলককরণ এবং ইনফো সরকার-থ্রি প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ২০১৮ সালের মধ্যে ফাইবার কানেক্টিভিটি স্থাপন সম্পন্নকরণের কর্মসূচি চলমান রয়েছে। অন্যদিকে গবেষণা প্রতিবেদনে দুর্বলতার মধ্যে বলা হয়েছে টেলিকম ও ডিজিটাল পেমেন্ট অবকাঠামোর অভাব এবং স্কিলড মানব সম্পদের অভাব।