কিশোরগঞ্জে অনুষ্ঠিত হলো তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচেতনতা কর্মসূচি


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
১৯ এপ্রিল ২০১৫, রবিবার

কিশোরগঞ্জে অনুষ্ঠিত হলো তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচেতনতা কর্মসূচি


বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি এবং আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিলের যৌথ আয়োজনে ১৮ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে কিশোরগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমী অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচেতনতা কর্মসূচি। কিশোরগঞ্জে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচেতনতা কর্মসূচিতে উপস্থিত তিন শতাধিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের মাঝে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির সর্বশেষ সংস্করণের ব্যবহারিক প্রয়োগ, ডিজিটাল বাংলাদেশ সম্পর্কে ধারণা, তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশের অগ্রগতির চিত্রসহ নানাবিধ বিষয় উপস্থাপন করেন সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

সকাল ১০.০০ টায় অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী আয়োজনে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির মহাসচিব জনাব নজরুল ইসলাম মিলন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জের মাননীয় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা,তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি) জনাব গোলাম মোহাম্মদ ভূঁইয়া। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা: আ.ন.ম. নৌশাদ খান। কর্মসূচিতে মূখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির প্রাক্তন সভাপতি এবং আনন্দ কম্পিউটারর্স এর প্রধান নির্বাহী জনাব মোস্তাফা জব্বার। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, কর্মসূচির সমন্বয়কারী ও বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির পরিচালক জনাব এ.টি শফিক উদ্দিন আহমেদ এবং বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিল (আইবিপিসি) এর নির্বাহী অফিসার জনাব মীর শরিফুল বাশার।

অনুষ্ঠানে কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষকবৃন্দ এবং বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ ও স্থানীয় নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

কর্মসূচিতে ডিজিটাল বাংলাদেশ, আউটসোর্সিং, কম্পিউটারের নানাবিধ কলাকৌশল, মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশন, ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে আমাদের অগ্রযাত্রা শীর্ষক ভিজুয়াল প্রেজেন্টেশন, ভিডিও ও পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টশন, ডিজিটাল শিক্ষাক্রম ও ডিজিটাল পাঠ্যপুস্তকের ধরন নিয়ে প্রাণবন্ত আলোচনা করে উপস্থিত সকলকে মাতিয়ে রাখেন জনাব মোস্তাফা জব্বার। ডিজিটাল শিক্ষা এবং ডিজিটাল শিক্ষার কনটেন্ট নিয়ে আলোচনা করেন বিজয় ডিজিটালের প্রধান নির্বাহী মিস জেসমিন জুঁই। গ্রাফিক্সেও বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত করেন বিজয় ডিজিটাল এর উপদেষ্টা জনাব মোহাম্মদ জালাল। শুধু আলোচনাই নয়, ছিলো প্রশ্নোত্তর পর্ব এবং কুইজও। প্রশ্ন দাতা এবং সঠিক উত্তর দাতাদের জন্য ছিলো আর্কষণীয় পুরষ্কার।